পুঠিয়া-তাহেরপুর মহাসড়কের কাজে অনিয়ম, ক্রুদ্ধ এলাকাবাসী

বিডি নিউজ২৩; রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার ভবানীগঞ্জ থেকে পুঠিয়া মহাসড়কের অবকাঠামোগত উন্নয়ন সম্প্রসারণ কাজ প্রায় শেষের পথে। এ রাস্তাটির কাজ শেষ হলে দূর হবে লক্ষ লক্ষ মানুষের দুঃখ-দুর্দশা দিন। এরই মধ্যে শেষ হয়েছে ২৭ কিলোমিটার এই রাস্তাটির প্রথম পর্যায়ের কাজ। দ্বিতীয় ধাপে এসে হচ্ছে পুরো রাস্তা ওয়ারিং এর কাজ।   

 

এরি মধ্যে নাম প্রকাশ না করার শর্থে এলাকার জনগন অভিযোগ করেন যে আমরা শুনেছিলাম রাস্তা টি ২৪ ফিট হয়ার কথা ছিল কিন্তু রাস্তা টি চৌরাই ১৮ ফিট করা হয়েছে।

 

তাই এলাকাবাসী ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ দৃষ্টি আকর্ষণ করছে।এছারও বাগমারার একজন জনপ্রতিনিধি দুখের সাথে বলেন পুঠিয়া টু ভবানি গঞ্জ রাস্তা টি সড়ক ও জনপথ বিভাগের 

 

আমাদের এম পি সাহেব এই কমিটির অন্যতম এক জন সদস্য। পুঠিয়া কাত্তিক পারা এলাকাই মাটি দিয়ে সড়ক টি ভরাট করার সময় ছেলে পেলে বাধা দিলে আমাদের এম পি বিসয় টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন। 

 

 

এদিকে এম পি সাহেব এর বিরুদ্দ্যে আরও অভিযোগ আছে সাবেক সর্বহারার ৪ জেলার কমন্ডার আর্ট বাবু বালুর কোন ঠিকাদার না হয়েও তার কাছ থেকে বালু নেয়া হয়েছে এম পি সুপারিসে।এবাপারে এলাকার মানুস জানান প্রথমে কাদা যুক্ত বালু দেওয়া হয় এর পরে মানুসের সমলচনার মুখেও নিম্ন মানের বালু দেন বলে অভিযোগ। 

 

এম পি এনামুল সাহেব এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন আমাকে কেও এব্যাপারে অভিযোগ করেনি। তুমি প্রথম বল্লে।তমার যদি মনে হয় অনিয়ম বা দুর্নীতি হয়েছে তাহলে তোমার পত্রিকাই তুমি লেখ।আর্ট বাবু কে বালু দেওয়ার ব্যাপারে আমি কোন সুপারিস করি নি।

 

পুঠিয়া হতে বাগমারার ভবানীগঞ্জ পর্যন্ত ২৭ কিলোমিটার এই মহাসড়ক যথাযথমান ও প্রশস্থতায় উন্নীতকরণ প্রকল্পে ব্যয় হচ্ছে ১৩০ কোটি টাকা। উক্ত রাস্তায় রয়েছে ছোট-বড় মিলে মোট ১৬ টি ব্রিজ ও কালভার্ট। 

 

জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটি দীর্ঘ কয়েক বছর থেকে যানচলাচল সহ লোকজনের ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়ে। রাস্তাটি ভেঙ্গে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় সকল প্রকার যানবাহন ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতেন। 

 

বাগমারা আসনের সংসদ সদস্য, সড়ক পরিবহণ ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক মহান জাতীয় সংসদে এই রাস্তাটি দ্রুত সংস্কার সহ প্রশস্থ করনের দাবী করেছিলেন। তাঁর দাবীর প্রক্ষিতে রাস্তাটি প্রশস্থ করণ করা হচ্ছে। রাজশাহী সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তর রাস্তাটির কাজ বাস্তবায়ন করছেন। 

 

বাগমারা থেকে পুঠিয়া রাস্তাটির কাজ শেষ হলে উপজেলাবাসীর উন্নয়নের দ্বার উন্মেচিত হবে। দ্রুত সময়ের মধ্যে রাজধানী ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করতে পারবেন লোকজন। এতে সময় এবং অর্থ দুই কম লাগবে। উন্নয়ন হবে এলাকার। ২০২১ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি প্রধান অতিথি থেকে রাস্তাটির প্রশস্থ করণ কাজের উদ্বোধন করেন ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক এমপি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *