স্কুলছাত্রী পুরুষে রুপাস্তরিত হওয়া ঘটনা গুজব পরিবার থেকেই ছড়ানো হয়েছে

মোস্তাফিজুর রহমান জীবন রাজশাহীঃ রাজশাহীর বাগমারা তাহেরপুর ভাইরাল হওয়া নারী থেকে পুরুষ রুপে রুপান্তরিত গুজব পরিবার থেকেই ছড়ানো হয়েছে, যা সম্পন্ন মিথ্যা, বানোয়াট। 

 

ভায়রাল হওয়া নারী তাহেরপুর ২ নং ওযার্ড নার্সারী পাশে মাহাবুর রহমান এর ছোট মেয়ে গত রবিবার রাতে হঠাৎ করে নারী থেকে পুরুষে রুপান্তিত হয়েছে এমন ঘটনার সাক্ষাৎ দিয়েছেন নারী থেকে ছেলে হওয়া নারী ও তার মা। 

 

এই ঘটনায় স্থানীয় সংবাদকর্মী গেলে তাদের মিথ্যা তথ্য প্রদান করে পরিবারের সদস্য ও মেয়ের মা। তারা দাবি করে তাদের মেয়ে ছেলে হয়ে গিয়েছে। আতিকা দেওয়া জন্য শুক্রবারে খাসি কিনবে এছাড়া তার বিয়ে দিবে মেয়ের সাথে এমন তথ্য দেন। 

 

পরে সঠিক তথ্যের জন্য অনুসন্ধান নামে সংবাদকর্মী একজন শিক্ষিকার মাধ্যমে জানা গিয়েছে তিনি ছেলে নিজের ওপর মামলা ও সমকামী সম্পর্ক অটল রাখতে এমন মিথ্যা বানোয়াট নাটক সাজিয়েছেন মেয়ের পরিবার। জানা যাই সমকামী সম্পর্ক নিয়ে ইতিপূর্বে মামলা আছে তাদের নামে তারা তাদের পাপ কে ঢাকতে আরেক পাপ কাজে নিয়োজিত করছেন তারা। 

 

এই বিষয়ে, স্থানীয়, পুলিশ, সাংবাদিকদের সামনে প্রথমে মেয়েকে পুরুষ দাবি করলেও মেয়ের বাবা পরে শিক্ষিকার কথা শুনে তিনি বলেন, তার স্ত্রী মাথায় টিউমার ৫ বছর থেকে অসুস্থ, তার মেয়ে ৫ বছর থেকে তাদের কথা শুনেন না তার মেয়ে মেয়েই আছে কোন পুরুষ হয়নি যা ছিলো তাই আছে তার মেয়ে তাদের অবাধ্য করে চলাচল করে। মানসিক ভাবে আমার মেয়ে অসুস্থ বলে জানান মাহাবুর রহমান। 

 

এই বিষয়ে স্থানীদের সাথে কথা বলে জানা যায় তাদের পরিবারের চলাচল সাধারণ পরিবারের চেয়ে আলাদা ও রামারামা এক মেয়ের সাথে সমকামী সম্পর্কের কারণে এই নাটক সাজিয়েছে মেয়ে। 

 

এই বিষয়ে তাহেরপুর রিভার ভিউ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাসানুজ্জামান বলেন, স্কুলে মাঝে মাঝে আসতেন শিক্ষার্থী হিসাবে পড়াশোনা তেমন ভালো না তবে বিষয়টি শুনে তিনি বলেন, মানসিক সম্যসা হতে পারে চিকিৎসা নেওয়া দরকার ও এমন ঘটনা বিরল। আশা করছি দ্রুত সমাধান হবে এবং স্কুল জীবনে ফিরবে। 

 

সহপাঠী দের সাথে কথা বলে জানা যাই, স্কুলে মোবাইল ফোন নিষেধ থাকলেও সে মানত না বরং বাথরুম গিয়ে ফোনে কথা বলত এছাড়া এক মেয়ের সাথে তার সম্পর্ক আছে এর ফলে এমন টা হতে পারে।। 

 

এই বিষয়ে বাগমারা তাহেরপুর ফাঁড়ি র আইসি জিলালুর বলেন, বিষয়টি শুনেছি পুলিশ, সাধারণ মানুষ, সাংবাদিক দের সামনে শিক্ষিকার মাধ্যমে আসলে তিনি নারী সনাক্ত 

করতে সক্ষম হয়েছি। পুরুষ হওয়ার ঘটনা সম্পন্ন মিথ্যা ও বানোয়াট।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *