• শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:১৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম
দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন এ্যাডঃ জালাল উদ্দীন উজ্জ্বল বাগমারা বাসিকে ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক সোহেল রানা বাগমারাবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, এমপি আবুল কালাম আজাদ ম্যানেজার নেজামকে উদ্ধার করে পরিবারের নিকট ফিরিয়ে দিয়েছে র‍্যাব দুই হাতুড়ির দাম ১ লাখ ৮২ হাজার, দুটি পাইপ কাটারের দাম ৯২ লাখ টাকা নেশা থেকে ফেরাতে না পেরে কুড়াল দিয়ে সন্তানকে কুপিয়ে হত্যা রাজশাহী টেলিভিশন জার্নালিস্ট ইউনিটের যাত্রা শুরু আরটিজেএফ আহবায়ক সৌরভ হাবিব, সদস্য সচিব মতিউর মর্তুজা টিসিবির পণ্য সরিয়ে ফেলানোর ভিডিও করায় সাংবাদিককে মারধর তাহেরপুর পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র শায়লা পারভিনের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠিত

সাংবাদিক পরিচয় দেবার পরও পুলিশের হাতে হেনস্থার শিকার

সংবাদদাতা:
সংবাদ প্রকাশ: শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২

বিডি নিউজ২৩: সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে নিজের পরিচয়পত্র দেখানোর পরেও হাতিরঝিল থানা পুলিশের সদস্যদের নিকট হয়রানির শিকার হয়েছেন বিবার্তার সাংবাদিক বাবর মাহমুদ। তিনি সরকারি নিবন্ধিত অনলাইন নিউজপোর্টাল বিবার্তা২৪ডটনেট-এর সাব এডিটর।

 

জানা যায়, শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকালে প্রতিদিনের মত অফিস শেষ করে হাতিরঝিলের রাস্তা ধরে বাসায় ফিরছিলেন ভুক্তভোগী এই সাংবাদিক। পথিমধ্যে শেখ দিলু বেপারী ওয়াক্ফ এস্টেট জামে মসজিদের সামনে রেল ক্রসিং পার হওয়ার সময় দুইজন পুলিশ তার গতিরোধ করেন। এসময় পুলিশ সদস্যরা বলেন, আপনার আচরণ সন্দেহজনক। আপনাকে সার্চ করা হবে। পরে তিনি তাকে কেন সার্চ করা হবে জানতে চেয়ে রেল লাইনের উপর দাঁড়িয়ে থাকেন। এরপর তাকে পাশের টি-স্টলে বসে থাকা পুলিশ কর্মকর্তার কাছে নিয়ে যাওয়ার কথা বলেন ওই পুলিশ সদস্যরা। এক পর্যায়ে এক পুলিশ কনস্টেবল এগিয়ে আসেন তার দিকে। ফলে আর কথা না বাড়িয়ে টি-স্টলে বসে থাকা পুলিশ কর্মকর্তা ইদ্রিস আলীর কাছে গিয়ে নিজের পরিচয় দিয়ে পরিচয়পত্র দেখান বাবর মাহমুদ। এ সময় তার কাছেও কেন তাকে সার্চ করা হবে জানতে চান। কিন্তু তিনি পূর্বের পুলিশ সদস্যের ন্যায় একই কথা বলে পকেট চেক করতে বলেন।

 

এরপর ভুক্তভোগী সাংবাদিক নিজের পকেট থেকে সবকিছু বের করে দেখান। সার্চ শেষে কিছু না পেয়ে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। ওই সময় বাবর হয়রানি করা পুলিশ কর্মকর্তা ইদ্রিস আলীর নেমপ্লেটের দিকে তাকালে, তিনি নিজের নেমপ্লেটে হাত দিয়ে বলতে থাকেন, দেখেন! দেখেন! নামটা ভালো করে দেখে যান।

 

এ বিষয়ে সাংবাদিক বাবর মাহমুদ বিবার্তাকে বলেন, আমি আমার পরিচয় দিলাম, পরিচয়পত্র দেখালাম। তবুও আমাকে হয়রানি করা হলো। পুলিশের কাছ থেকে এই রকম অশোভন আচরণ কোনভাবেই কাম্য নয়।

 

অভিযোগের বিষয়ে অবগত করে বক্তব্য জানতে হাতিরঝিল থানার ওসি আব্দুর রশিদকে বিবার্তা২৪ডটনেটের পক্ষ থেকে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি। এমনকি তার মোবাইলে অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যের নাম উল্লেখ করে অভিযোগের বিষয়ে ক্ষুদেবার্তা পাঠালেও কোন সাড়া পাওয়া যায়নি।

সংবাদটি শেয়ার করুন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

Recent Comments

No comments to show.