• সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:৪৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম
রাজশাহী এডিটরস ফোরামের সভাপতি লিয়াকত, সাধারণ সম্পাদক অপু বইমেলায় গাঙচিল প্রকাশিত বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করলেন রাসিক মেয়র লিটন বাঘায় সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন, বিএমএসএস’র নিন্দা প্রকাশ রাজশাহীর বাগমারা থেকে চাঁদাবাজ চক্রের মূলহোতা, গ্রেফতার করেছে ৱ্যাব-৫ আরএমপির পুলিশ কমিশনারসহ ৬ পুলিশ সদস্য পেলেন বিপিএম-পিপিএম পদক রাজশাহীর বাঘায় সাংবাদিককে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন থানায় অভিযোগ প্রশাসনের উপর ক্ষোভ ঝাড়লো সাংবাদিকের উপর হত্যার হুমকি, থানায় অভিযোগ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীয় মেয়র হতে চলেছেন শায়লা পারভীন: তাহেরপুর পৌর নির্বাচন রুয়েটে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত পুঠিয়ায় সেভ লাইফ রক্তদান সংস্থার ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও মাতৃভাষা দিবস পালিত

গোপালগঞ্জে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিধবা নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ

সংবাদদাতা:
সংবাদ প্রকাশ: শুক্রবার, ১৯ আগস্ট, ২০২২
বিডি নিউজ২৩
গোপালগঞ্জে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিধবা নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ

বিডি নিউজ২৩: ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির প্রতিবাদে এবং বিয়ের দাবিতে গোপালগঞ্জের করপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান এসএম হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন এক বিধবা নারী। 

 

শুক্রবার (১৯ আগষ্ট) সকাল ১০টার দিকে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলায় নিজ বাড়িতে ওই নারী এ সংবাদ সম্মেলন করেন।

 

সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্যে ভুক্তভোগী ওই নারী বলেন, ‘‘ছয় মাস পূর্বে হাবিবুর রহমানের আমার বাড়িতে এসে বলেন- ‘কৈশোর কাল থেকে আমি তোমাকে ভালবাসি, এখনও তোমাকে ভালবাসি। আর যতদিন বেঁচে থাকবো ততদিন তোমাকে ভালবেসে যাবো।’ এরপর গত ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হাবিবুর রহমান আমার কাছে আসেন। চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে তিনি আমাকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেন। নির্বাচনের খরচ বাবদ আমার কাছ থেকে তিনি দশ লাখ টাকাও নেন।

 

তিনি বলেন, ‘সর্বশেষ গত ৩১ মে মঙ্গলবার রাতে তার সঙ্গে আমার শারীরিক সম্পর্ক হয়। এরপর থেকে তাকে বিয়ে করার কথা বললে তিনি আমাকে বিয়ে করতে অস্বীকার করেন। চেয়ারম্যান আমার মান-সম্মান নষ্ট করেছেন। এলাকায় মুখ দেখানো দায় হয়ে পড়েছে। তাই আমি বিয়ে করার দাবি করছি। তা না হলে আত্মহত্যা করা ছাড়া আমার কোনো উপায় থাকবে না।

 

সংবাদ সম্মেলনে ওই নারী আরও বলেন, ‘গত ১৪ আগষ্ট নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধিত ২০০৩) এর ৯(১)ধারায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে ইউপি চেয়ারম্যান এস.এম হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করেছি। অভিযোগটি আদালত পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

 

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত করপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এস.এম হাবিবুর রহমান বলেন, ‘আমাকে হেয় করতে নির্বাচনে পরাজিত প্রার্থীরা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছেন। যাতে চেয়ারম্যানি করতে না পারি। সেজন্য এই মিথ্যা ও বায়োয়াট অভিযোগ করা হচ্ছে। ওই নারীর সঙ্গে আমার কোনোদিনই আর্থিক ও শারীরিক এবং প্রেমের সম্পর্ক ছিলো না। তবে গত নির্বাচনে ওই নারী আমার দল করেছেন। আমার জন্য ভোট চেয়েছেন। আমার পক্ষে সর্বাত্মক কাজ করেছেন। 

সংবাদটি শেয়ার করুন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

Recent Comments

No comments to show.