• সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ০৭:২৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম
মোহনপুরে চেয়ারম্যান প্রার্থী এনামুল হকের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা রাজশাহীতে পোস্ট অফিসে রাখা টাকা উধাও, এক নারীর আত্মহত্যা চেষ্টা চারঘাটে ২টি ওয়ান শুটারগান ও ফেন্সিডিল সহ কুখ্যাত অস্ত্র ব্যবসায়ী আটক বাঘায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা নাটোরে জাল টাকার নোট সহ স্বামী-স্ত্রী আটক এমপি বাদশার সাথে রাজশাহী অনলাইন সাংবাদিক ফোরাম নেতৃবৃন্দের সৌজন্য সাক্ষাৎ বাগমারার এমপি কালামের চাচাতো ভাই আ: সালাম মারা গেছেন, এমপির শোক প্রকাশ বাগমারায় চাঁদাবাজি করতে গিয়ে জনতার হাতে গণধোলাইয়ের শিকার দুই ভুয়া সাংবাদিক পুঠিয়ায় সমবায়ী কৃষকদের সাথে প্রতিমন্ত্রী দারা’র মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত আবারো রাজশাহীতে র‌্যাব-৫ এর হাতে বিপুল পরিমাণ ফেন্সিডিল সহ আটক-১

চোরাই মোবাইলের IMIE বদল করে বিক্রি করায় ৩ বছরের জেল

সংবাদদাতা:
সংবাদ প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৫ জুলাই, ২০২২
BD News23
তিনি মোবাইলের আইএমইআই বদল করে বিক্রি করতেন চোরাই মোবাইল ফোন। এতে হারিয়ে যাও ফোন খুজে পেতে বেগ পেতে হতো পুলিশের। রাজশাহীর আদালত জেল দিয়েছেন ৩ বছর...More

তিনি মোবাইলের আইএমইআই বদল করে বিক্রি করতেন চোরাই মোবাইল ফোন। এতে হারিয়ে যাও ফোন খুজে পেতে বেগ পেতে হতো পুলিশের। রাজশাহীর আদালত জেল দিয়েছেন ৩ বছর…More

 

মহানগর প্রতিনিধি: বিডি নিউজ২৩/BD News23: চোরাই মোবাইল সেটের আইএমইআই নম্বর পরিবর্তন করে বিক্রির দায়ে রাজশাহীর আদালত এক ব্যক্তিকে তিন বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে সেই সাথে তাকে এক লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে। জরিমানার টাকা পরিশোধ না করলে শাস্তি হিসেবে আরও তিন মাসের কারাদণ্ড ভোগ করতে হবে।

 

মঙ্গলবার সকালে রাজশাহীর সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক জিয়াউর রহমান এ রায় দিয়েছেন। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হলেন বগুড়ার কাহালু উপজেলার পাতাঞ্জ গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে মিজানুর রহমান (৩২) । বগুড়ার দুপচাঁচিয়ার তালোড়া বাজারে ‘মিজান মোবাইল সার্ভিসিং’ নামে তার সার্ভিসিংয়ের দোকান আছে।

 

রাজশাহী সাইবার ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ইসমত আরা জানান, মিজানুর রহমান তার দোকানে আইএমইআই নম্বর পরিবর্তনের বিশেষ ইলেক্ট্রনিক্স যন্ত্র ‘মিরাক্কেল বক্স’ ব্যবহার করতেন। এটির মাধ্যমে তিনি চোরাই মোবাইলের আইএমইআই নম্বর পরিবর্তন করে দিয়ে বিক্রি করতেন। ফলে চোরাই করা মোবাইলগুলো আর শনাক্ত করা সম্ভব হতো না।

 

মামলার সুত্র থেকে জানা যায়, মিজানুরের এ কর্মকাণ্ডের তথ্য পেয়ে ২০১৮ সালের ৬ নভেম্বর দুপচাঁচিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুস সালাম অভিযান চালান। এ সময় তিনি মিরাক্কেল বক্স, দুটি মোবাইল ফোন ও কম্পিউটারসহ মিজানুরকে গ্রেপ্তার করেন। তার বিরুদ্ধে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে একটি মামলা করেন এসআই আবদুস সালাম। পরবর্তীতে আদালতে মামলার অভিযোগপত্র দাখিল হলে অভিযুক্ত মিজানুরের বিচার শুরু হয়।

 

বিচার চলাকালে ১২ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যে মিজানুরের বিরুদ্ধে আনিত  অভিযোগ প্রমাণিত হয়। অভিযোগ প্রমাণের ভিত্তিতে  আদালত তাকে দোষী সাব্যস্ত করে এ রায় দিয়েছেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন। পরে তাকে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

Recent Comments

No comments to show.