নিষেধ অমান্য করে, পদ্মা সেতুতে ঢুকে পড়ে উৎসুক জনতা

প্রথম আলো নিউজ

বিডি নিউজ২৩/BD News23: বাঙালির স্বপ্ন, সাহস, সক্ষমতার প্রতীক পদ্মা সেতুর উদ্বোধন হলো আজ। উদ্বোধনী দিনে নিয়ম ভেঙে উৎসুক জনতা পদ্মা সেতুতে উঠে অবশেষে নামল আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পিটুনি খেয়ে। তবে পিটুনি খেয়েও আক্ষেপ নেই বলে জানান একজন। তিনি বলেছেন, সেতুতে উঠতে না পারলে দম ফেটে মরে যেতেন।

 

অনুমতি না থাকলেও প্রধানমন্ত্রী সেতু উদ্বোধন করার পর বেলা ১ টার দিকে মাওয়া প্রান্তে অসংখ্য মানুষ ঢুকে পড়ে সেতুতে। পরে প্রায় এক ঘণ্টায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। উৎসুক সাধারণদের সেতু থেকে নামানোর জন্য লাঠিপেটাও করে তারা

 

প্রধানমন্ত্রী সেতু পার হওয়ার পর আওয়ামী লীগ নেতাদের বহনকারী কিছু বাসও পার হয়। বেলা একটার দিকে সেতুর উল্টো পথের মুখ থেকে পুলিশ পাহারা কিছুক্ষণের জন্য শিথিল হয়ে পড়ে। এই সুযোগে বেশ কিছু মোটরসাইকেল ও কয়েকটি মাইক্রোবাস সেতুতে উঠে পড়ে।

 

এর সঙ্গে সঙ্গে নিরাপত্তা বেষ্টনী টপকে, কোথাও ভেঙে, আবার কোথাও বেষ্টনীর নিচের মাটি সরিয়ে উৎসুক সাধারণরা সেতুতে ঢুকে পড়ে অসংখ্য মানুষ। মুহূর্তেই মাওয়া প্রান্ত থেকে পায়ে হেঁটে জাজিরা প্রান্তে ছুটতে থাকেন তারা। একই সময়ে সেতুতে উঠে সেলফি তোলা, ভিডিও ধারণ থেকে শুরু করে মাওয়া প্রান্তের ইলিশ ফোয়ারায় নেমে হাত মুখ ধোঁয়া শুরু করেন তারা। তাৎক্ষণিকভাবে মনে হয়, সেতু বুঝি খুলে দিল সরকার। এমন বিভ্রান্তিতে পড়ে খাবার ও খেলনা বিক্রি করতেও সেতুতে উঠে পড়েন হকাররা।

 

সঙ্গে সঙ্গে পরিস্থিতি সামাল দিতে একযোগে কাজ শুরু করে র‌্যাব, পুলিশ, ও সেনাবাহিনী। তারা সেতু থেকে বাহন ও মানুষ নামাতে লাঠিচার্জও করে। বাহিনীর সদস্যদের প্রতিরোধের মুখে ফিরে আসে উৎসুক জনতা ও বাহনগুলো।

 

জামাল নামের এক যুবক ঘটনার শুরুর দিকেই সেতুর বেষ্টনী টপকে ওপরে উঠে পড়েন। তিনি বলেন, আমি ব্রিজে ওঠে দেখি মাওয়ার দিক উল্টা রাস্তায় থেকে একটা মোটরসাইকেল আসতেছে। ওই লোক একা ছিল। আমি তারে সিগন্যাল দিয়ে থামায়া বললাম, ‘ভাই ব্রিজ পার হইতেছেন, আমারেও নিয়া যান।

 

পদ্মা সেতুর উত্তর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন জানান, হঠাৎ করে সেতুর সীমানা প্রাচীর টপকে মানুষ ঢুকে পড়ে। আমরা অল্প সময়ের মধ্যেই সেই ক্রাউড কন্ট্রোল করি।

 

সেতুতে উল্টোপথে মোটর সাইকেল ও গাড়ি কীভাবে উঠল- এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘সেতুতে গাড়ি বা মোটরসাইকেল উঠেছে কি না এ বিষয়ে আমাদের কাছে কোন তথ্য নেই।’

 

র‌্যাব ১১ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল তানভীর মোহম্মদ পাশা এ বিষয়ে বলেন, সেতুতে গাড়ি ও মোটরসাইকেল কীভাবে উঠল, এ বিষয়ে আমার কাছে সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য নেই। আমাদের সেতুর মব কন্ট্রোল করতে বলা হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে দুই প্রান্ত থেকে আমরা এপ্রোচ নিয়ে মব কন্ট্রোল করি। গাড়ি মোটরসাইকেল বা মানুষ কোনটিকেই আমরা সেতু অতিক্রম করতে দেইনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Related posts

Leave a Comment