বাগমারার দক্ষিণ মাঝ গ্রামে আগুন দিয়ে বাড়ি পোড়ানোর অভিযোগ

মোস্তাফিজুর রহমান জীবন রাজশাহীঃ রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার হামিরকুৎসা ইউপির দক্ষিণ মাঝগ্রাম গ্রামে লালু প্রাং এর বসতবাড়ি আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠেছে।

 

গত ৭ জুন গত মঙ্গলবার আনুমানিক রাত ২ টায় হঠাৎ করে বাড়ির চারপাশ আগুন লাগিয়ে দেয় দূর্বিত্তরা।

 

৭ জুন ৭৫ বছর বয়স্ক লালু প্রাং এর বাড়িতে অগ্নিকান্ডে টিন সেটের ঘর পুড়ে ছাই হয়েছে।পুড়ে গেছে প্রায় ১ লক্ষ টাকার আসবাবপত্র ও প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র। লালু প্রাং এর পরিবারে ২ চৌকিতে নারী ও শিশুসহ ৬ জন ঘুমিয়ে ছিলেন বলে জানান যায়।

 

হঠাৎ করে রাত দুইটার দিকে লালু প্রাং ও তার বাসার সদস্যরা চিৎকার শুরু করলে স্থানীয়রা ছুটে এসে আগুন নিভানোর চেষ্টা করে। এবং এই পরিবারকে মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা করে।চারেদিক যখন আগুনের শিখা জ্বলছিলো তখন টিনসেটের পাশ থেকে অপরিচিত একজন ও স্থানীয় এক সন্দেহ ভাজনকে স্থানীয়রা ধরে বেধে রাখে। এসময় বাগমারা থানা পুলিশকে অবগত করলে সন্দেহ ভাজন বেঁধে রাখা ওই দুইজনকে উদ্ধার করে থানা পুলিশ। সন্দেহ ভাজন ওই দুই জনকে আটক করে বেধে রাখার জন্য উল্টো আগুনে পুড়ে যাওয়া বাড়ির মালিক ও সদস্যর ওপর মামলা দায়ের করেন।

 

এ মামলায় আলা বক্স ও শহীদুল ইসলামকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠিয়ে দেন থানা পুলিশ।

 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বাড়ি পোড়ানোর বাস্তব চিত্র। তবে এলাকাবাসির দেওয়া তথ্য মতে, আগুন লাগিয়ে দিয়ে পোড়ানো হয়েছে বলে জানা যায়। এছাড়াও একাধিক এলাকাবাসি জানান যে, পরিকল্পিতভাবে বাড়িতে অাগুণ ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

 

এবিষয়ে জানতে চাইলে লালু প্রাং জানান,

রিনা ও তার পরিবারের সাথে তাদের জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলছিলো। এরই সুত্রধরে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে। এলাকাবাসী এই পরিবারের ভয়ে মুখ খুলতে চান না। কিছু বললে মামলা হামলার হুমকিও দেন।

 

এবিষয়ে জানতে চাইলে বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোস্তাক আহমেদ বলেন,আমি সরেজমিনে গিয়ে দেখেছি আগুনের সুত্রপাতের কারন জানা যায় নি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *