ফ্রি ফায়ার খেলতে যাচ্ছি রাতেই ফিরবো মা, ছেলে ফেরেনি ফিরেছে লাশ

প্রথম আলো

বিডি নিউজ২৩/BD News23: রাজশাহীঃ রাতে ফ্রি ফায়ার খেলতে গিয়ে নিখোজ হওয়া সাগরের বাড়িতে এখন শোকের ছায়া৷। বুধরার রাত সাড়ে আটটার সময় বাড়ি থেকে বের হয় বন্ধুদের সাথে ফ্রি ফায়ার খেলতে গিয়ে নিখোজ হয়েছিলেন তিনি৷ রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার বেলপুকুর (আরএমপি) থানাধীন বেলপুকুরিয়া গ্রামের সাহাদের ছেলে হাসিবুর রহমান সাগর (১৯)। সাহাদ পেশায় একজন কৃষক। সাগর বেলপুকুর আইডিয়াল ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী।

সাগরের মা জানান, বুধবার সারাদিন নাটোরের লালপুর গ্রীণ ভ্যালি পার্কে ঘুরে রাতে বাসায় ফেরে সাগর, রাতে খাবার খেয়ে বাইরে যেতে চাইলে আমি সাগর কে বলেছিলাম তোর বাবা নেই আজ বাড়িতে থাকে, ছেলে উত্তরে রাত ১০টার মধ্যে বাড়িতে ফেরার কথা বললেও ফিরেনি, ফিরলো আমার ছেলের লাশ।
বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টার দিকে বেলপুকুর থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছিলাম। শুক্রবার সকালে বেলপুকুর থানা পুলিশ হাসিবুলের লাশ উদ্ধার করে।

ভোরে নিখোঁজ হাসিবুলের মা ও খালা ছেলের খোঁজে বের হয়। খোঁজখোঁজির এক পর্যায়ে বেলপকুর রেলগেটের পূর্ব পাশে সিগন্যাল পাখার সামনে হাসিবুলের লাশ পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার শুরু করে। তাদের চিৎকারে আশেপাশের লোকজন ছুটে এসে বেলপুকুর থানা পুলিশকে খবর দেয়।

এব্যাপারে বেলপুকুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাঃ মনিরুজ্জামান জানান, খবর পেয়ে বেলপুকুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে লাশের আলামত সংগ্রহের জন্য সিআইডিকে খবর দেওয়া হয়।

রাজশাহীর সিআইডি টিম এসে লাশের আলামত সংগ্রহ করে। এছাড়াও তিনি বলেন, ঘটনাস্থল জিআরপি থানার অধিনে তাই জিআরপি থানা পুলিশকে খবর দেওয়া হয়েছে।

জিআরপি থানা পুলিশ এলে মামলা যদি জিআরপিতে হয় তাহলে লাশ তারা নিয়ে যাবে। এছাড়াও লাশের মাথায় আঘাতে চিহ্ন রয়েছে ধারনা করা হচ্ছে হাসিবুলকে দুইদিন আগে মেরে এখানে ফেলে রেখে যায় হত্যাকারীরা। যদি মামলা আমাদের থানায় হয় তাহলে পরবর্তী ব্যবস্থা আমরা গ্রহন করবো বলে এ কর্মকতা জানান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Related posts

Leave a Comment