• রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:৩৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম
বাঘায় সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন, বিএমএসএস’র নিন্দা প্রকাশ রাজশাহীর বাগমারা থেকে চাঁদাবাজ চক্রের মূলহোতা, গ্রেফতার করেছে ৱ্যাব-৫ আরএমপির পুলিশ কমিশনারসহ ৬ পুলিশ সদস্য পেলেন বিপিএম-পিপিএম পদক রাজশাহীর বাঘায় সাংবাদিককে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন থানায় অভিযোগ প্রশাসনের উপর ক্ষোভ ঝাড়লো সাংবাদিকের উপর হত্যার হুমকি, থানায় অভিযোগ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীয় মেয়র হতে চলেছেন শায়লা পারভীন: তাহেরপুর পৌর নির্বাচন রুয়েটে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত পুঠিয়ায় সেভ লাইফ রক্তদান সংস্থার ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও মাতৃভাষা দিবস পালিত পুঠিয়ায় হাট পাহারাদারের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার এলাকাবাসীর মাঝে অন্য গুঞ্জন প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

রাজশাহীতে ১০ মণ রড চুরির অভিযোগ ১০ বছরের শিশুর উপর!

সংবাদদাতা:
সংবাদ প্রকাশ: সোমবার, ১১ এপ্রিল, ২০২২
বিডি নিউজ২৩
রাজশাহীতে ১০ মণ রড চুরির অভিযোগ ১০ বছরের শিশুর উপর!

মোস্তাফিজুর রহমান জীবন রাজশাহীঃ বিডি নিউজ২৩/BD News23: রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের রামরামা পূর্ব পাড়া গ্রামে ১০ বছরের শিশু সোহান  অমানবিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।

৬ এপ্রিল বুধবার বিকাল ৪ ঘটিকার সময় রামরামা পূর্ব পাড়া মসজিদের সামনে এ ঘটনা ঘটেছে। প্রত্যক্ষদর্শীর বর্ণনা মতে, বুধবার বিকাল আনুমানিক ৪ ঘটিকার সময় আসরের নামাজ পড়তে বাড়ি থেকে বাহির হয় ১০ বছরের শিশু সোহান।

সোহান রামরামা পূর্ব পাড়া খলিলের ছেলে। সংসারের অভাব অনটনের কারনে সোহান কে দাদা দাদির কাছে রেখে স্বামী-স্ত্রী মিলে ঢাকায় গার্মেন্টএ কাজ করেন সোহানের পিতা মাতা। সোহান আসরের নামাজ পড়ে মসজিদ থেকে বাহির হলে পিছন হতে একই এলাকার সাকিমুদ্দির ছেলে জাহাঙ্গীর (৪০) ডাক দেন। সোহান দাঁড়িয়ে গেলে রড চুরির অপবাদে তাকে মধ্যেযুগী কায়দায়  অমানবিক  নির্যাতন করেন। ছোট্ট এই শিশুকে ১০ মন রড চুরির অপবাদ দিয়ে লাথি, ঘুষি,চড়, আছাড় মারতে থাকে জাহাঙ্গীর।

এসময় ছোট্ট শিশুর সামনের দুই দাঁত দিয়ে রক্তে গায়ের কাপড় ভিজে যায়। ছোট্ট এই শিশু চিৎকার চেচামেচি করলে মসজিদ ও আশেপাশের লোক এসে সোহান কে মৃত্যুর হাত থেকে বাঁচান। শিশুটির শারিরীক অবস্থা খুব খারাপ দেখে দূত চিকিৎসার জন্য তাহেরপুর ক্লিনিকে গেলে চিকিৎসারত ডাক্তার দূত রাজশাহী মেডিকেল কলেজ এ ভর্তি করার জন্য পরামর্শ দেন।

সাথে সাথে রাজশাহী মেডিকেল এ ভর্তি করার কারনে শিশুটি প্রানে বেঁচে যায়। বর্তমানে শিশুটির ডান হাতে তিনটি রড দেওয়া আছে আদো কোন দিন হাত ভালো হবে কি না পরিবার এ নিয়ে চিন্তিত রয়েছেন। এদিকে অসহায় পরিবার শিশুর চিকিৎসার খরচ চালাতে গিয়ে হিমসিম খাচ্ছেন।

এবিষয়ে জানতে চাইলে সোহানের দাদি বলেন, আমার নাতি কে জাহাঙ্গীর রড চুরির অপবাদে যেভাবে অমানবিক নির্যাতন করে  হাত  ভেঙ্গে দিয়েছে তা কোন ভাবেই মেনে নেওয়া সম্ভব নয়। আমরা যেন কোন থানা পুলিশ না করি সেজন্য ভয়ভিতি হুমকি দিয়েছে। আমরা অসহায় ভয়ে থানায় মামলা করতে পারছি না।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আবেদন  আমার ছোট্ট নাতিকে যেভাবে নির্যানত করেছেন তার বিচার চাই।

জানতে চাইলে প্রত্যক্ষদর্শী মুনসুর বলেন, জাহাঙ্গীর যেভাবে ছোট্ট শিশুকে মারধর করেছে তা বলে বোঝাতে পারবো না। আমরা না এগিয়ে আসলে হয়তো শিশুটিকে মেরে ফেলতো।আমরা এই শিশু নির্যাতনের বিচার চাই।

সংবাদটি শেয়ার করুন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

Recent Comments

No comments to show.