মাটি আর লবণ দিয়ে তৈরি করা বিস্কুট খেয়ে পেট ভরাতে হচ্ছে তাদের

BD News23

মোহাম্মদ ইমাম হোসাইন, চিফ এডিটরঃ বিডিনিউজ২৩: পৃথিবী শুরুর পর থেকেই বেশ বাঘা বাঘা নেতাদের জন্ম হয়েছে আমাদের এই দুনিয়ায়। এই সকল নেতাদের মধ্যে অনেক নেতারাই চেষ্টা করেছেন মানুষের ক্ষুধা নিবারণের জন্য। এখনো কোনো নেতাই পূর্ণভাবে সফলতা লাভ করতে পারেনি তবুও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

 

পৃথিবীর এক প্রান্তের মানুষ রয়েছেন যারা প্রচুর খাদ্য নষ্ট করছেন, ঠিক তারই আরেক প্রান্ত “হাইতি” সে দেশের মানুষ, মাটির সাথে লবণ মিশিয়ে বিস্কুট তৈরি করে তা সংরক্ষন করে রাখছেন। বর্তমানে সেগুলো খেয়ে তারা পেট ভরানোর চেষ্টাও করছেন। হাইতিতে এক ধরনের মাটি পাওয়া যায় সে মাটির সাথে লবণ মিশিয়ে বিস্কুট বানিয়ে খাচ্ছেন তারা। সেখানে পুষ্টিগুণ না থাকলেও পেট ভরাতে হবে চিন্তা একটাই।

 

হাইতির জনগণের দৈনিক মাথাপিছু আয় দুই ডলারের ও কম। ফলমূলসহ নানান রকম পুষ্টিকর খাদ্য, তাদের কাছে স্বপ্নের মতো। হাইতির এক শ্রেণীর মানুষের কাছে পেট ভরানোর জন্য এই বিস্তৃতি প্রধান। অন্য সব পণ্যের মত বাজারে বিক্রি হচ্ছে লবণ দিয়ে মাটি দিয়ে তৈরি এই বিস্কিট।

 

দীর্ঘদিন থেকে হাইতির গর্ভবতী মায়েদের এই হলুদ মাটি খাওয়ানো হতো আর বলা হতো এই মাটিতে রয়েছে ক্যালসিয়াম তাই গর্ভাবস্থায় খাওয়ালে গর্ভের বাচ্চা সুস্থ থাকবে এমন ধারণা থেকেই গর্ভবতীদের খাওয়ানো হতো এই হলুদ মাটি। বর্তমানে ভেজিটেবল তেল অয়েল সাথে লবন দিয়ে, মাটি দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে বিস্কিট। বাজারেও ঝুড়ি ঝুড়ি কিনতে পাওয়া যায়। তবে অন্য সব পণ্যের মধ্যে এই বিস্কিটের দাম একটু কম।

 

মাটির বিশেষভাবে তৈরি এই বৃষ্টিতে পুষ্টিগুণ রয়েছে কিনা এটা খেলে ক্ষতি হবে কিনা কিছুই তোয়াক্কা করেন না তারা শুধু জানেন পেট ভরাতে হবে যে কোনো মূল্যে এমনটা চিন্তা হাইতির হত দরিদ্র মানুষদের মধ্যে।

 

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা পুরো পৃথিবী নিয়ে কাজ করছেন হাইতিতে রয়েছে তাদের প্রতিনিধি দল। তবে শুধু যে হাইতিতে খাদ্য সংকট তীব্র হয়েছে তা নয় পুরো পৃথিবীর প্রায় অনেক দেশেই ইতোমধ্যে দেখা দিয়েছে দ্রব্যমূল্যের বাজারে দারুণরকম জাহাজ কবে কমবে এই দ্রব্যমূল্য তাও হয়তো জানা নেই কারো।

 

বিশেষ: দ্রষ্টব্য: বিভিন্ন গণমাধ্যম ও ইন্টারনেট থেকে সকল তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করা হয়েছে

সংবাদটি শেয়ার করুন

Related posts

Leave a Comment