একই উপজেলায় ৯ মাস ২১৫ জন বয়স্ক বিধবা ভাতা পায়নি ১০ লাখ টাকা!

একই উপজেলায় ২১৫ জন ব্যক্তি বয়স্ক, বিধবা, প্রতিবন্ধী ভাতা পায়নি ৯ মাস যাবত। এই টাকার পরিমাণ প্রায় ১০ লাখ। অনেকেই বলছেন গরীবের টাকা হয়েছে ডিজিটাল চুরি…More

মোহাম্মদ ইমাম হোসাইন, BD NEWS23 বিডি নিউজ২৩ঃ দেশে চলছে করোনা ভাইরাসের মহামারী এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি কষ্টে আছেন গরিব দুঃখী মানুষের। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গরিব-দুঃখী মানুষদের মধ্যে যারা সবচেয়ে বেশি দূর অবস্থায় রয়েছেন তাদের ভাতার ব্যবস্থা করেছেন। এদের মধ্যে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ভাতা পেয়ে থাকেন বয়স্ক, বিধবা এবং প্রতিবন্ধীরা। কিন্তু নয় মাস যাবৎ এই টাকা তাদের ২১৫ জনের কাছে পৌঁছায় না। গরিব ঐ সকল মানুষ এরা মূলত ভাতার ওই টাকার ওপর নির্ভর করেন অনেকটাই। সে টাকায় যখন তাদের হাতে পৌঁছায়নি তখন তাদের ঈদ আনন্দ কেমন হচ্ছে তা খুব সহজেই বোঝা যায়।

বগুড়ার সোনাতলা উপজেলা বয়স্ক বিধবা এবং প্রতিবন্ধী ভাতা পায় নি প্রায় ২১৫ জন ব্যক্তি এমনটা অভিযোগ রয়েছে। একসাথের অন্যদের ভাতা যথা সময়ে তাদের কাছে পৌঁছালে ২১৫ জন ব্যক্তির কাছে এখনও নয় মাস যাবত কোন পাতায় পৌঁছে নি।

ডিজিটাল মোবাইল ব্যাংকিং নগদে টাকা গুলো আসার কথা অথচ ৯ মাস যাবত ২১৫ জন ব্যক্তির ডিজিটাল মোবাইল ব্যাংকিং নগদ একাউন্টে কোন টাকা ঢোকেনি।

গরিব বয়স্কা, বিধবা, এবং প্রতিবন্ধীরা প্রতিনিয়ত এই টাকার জন্য ধরনা দিচ্ছেন ইউনিয়ন পরিষদ এবং উপজেলা সমাজসেবা অফিসার কিন্তু তাতেও কোনো কাজ হচ্ছেনা।

এদিকে জানা যায় যে, বগুড়ার সোনাতলা উপজেলা বয়স্ক বিধবা এবং প্রতিবন্ধী ভাতা ভোগীর সংখ্যা ১২,৭২২ জন। এরমধ্যে ৬১৫৮ জন বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা ভোগী ৩৩৮৩ জন, এবং প্রতিবন্ধী ভাতাভোগী রয়েছেন, ৩১৮১ জন। এরমধ্যে বিধবা ও বয়স্ক ভাতা প্রতিমাসে ৫০০ টাকা করে পেয়ে থাকে একজন ভাতাভোগী। এছাড়াও প্রতিবন্ধী ভাতা হিসেবে পেয়ে থাকেন ৭৫০ টাকা করে।

২১৫ জন বিধবা বয়স্ক এবং প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মোট টাকা নয় মাসে দাঁড়ায় প্রায় ১০ লাখ টাকা।

এদিকে জোড়গাছা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রোস্তম আলী মন্ডল তিনি বলেন, আমার ইউনিয়নে ৯৮ জন ব্যক্তি এখনো টাকা পায়নি বিষয়টি সত্য। মাসিক সমন্বয় মিটিং এর সময় বিষয়টি আলোচনা করা হবে তবে যারা এখনো টাকা পায়নি তারা সে টাকাগুলো পাবে কিনা সে বিষয়ে কিছু বলা যাচ্ছে না তবে সমাজসেবা অফিসারের সাথে আলোচনা করে দেখছি এবং যারা টাকা পায়নি তাদের একটি লিস্ট করে সমাজসেবা অফিসে পাঠানো হয়েছে। এছাড়াও চেয়ারম্যান বলেন, একসাথে এতগুলো মোবাইল নাম্বার ভুল হওয়ার কোনো গ্রহণযোগ্য উত্তর হতে পারে না।

এদিকে উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আব্দুল হান্নান তিনি বলেন, নাম্বার গুলো ভুল হওয়ার কারণে টাকাগুলো অন্য নাম্বারে চলে গেছে সেই কারণে ভুক্তভোগীরা টাকা পায়নি।

এছাড়াও সমাজসেবা অফিসার আব্দুল হান্নান আরো দাবি করে বলেন, আমরা ডিজিটাল মোবাইল ব্যাংকিং নগদ এর কাছে সঠিক নাম্বার পাঠিয়ে দিয়েছি নগদ কোম্পানির যদি ভুল করে থাকে তাহলে সে ক্ষেত্রে আমাদের কিছু করার নেই তবে বিষয়টি নিয়ে আমরা আরও পর্যালোচনা করে দেখব।

এখন সাধারণ মানুষের মনে প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে এতগুলো মানুষের এতগুলো টাকা আসলে ভুল হয়ে যাওয়ার বিষয়টি অন্য রকম। নগদ কোম্পানি আসলে টাকা দিয়েছে নাকি অন্য কোন ঘাপলা আছে তা খতিয়ে দেখার জন্য ঊর্ধ্বতন মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন এলাকাবাসীরা।

বিডি নিউজ২৩ এর পক্ষ থেকে করোনা সাবধানতাঃ এই ভাইরাস থেকে একটু রক্ষা পেতে চাইলে অবশ্যই জনসমাগম এড়িয়ে চলতে হবে। মুখে মাস্ক ভালোভাবে ব্যবহার করার কোনো বিকল্প পথ নেই। নিজে সতর্ক থাকতে হবে অন্যকেও সতর্ক ভাবে রাখতে হবে। যতোটুকু সম্ভব হয় বাহিরে যাওয়া একদম কমিয়ে দিতে হবে। বাহিরে না গেলেই সবচেয়ে ভালো। BD NEWS23 বিডি নিউজ২৩

একই উপজেলায় ৯ মাস ২১৫ জন বয়স্ক বিধবা ভাতা পায়নি ১০ লাখ টাকা!
একই উপজেলায় ৯ মাস ২১৫ জন বয়স্ক বিধবা ভাতা পায়নি ১০ লাখ টাকা!
শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *