ছেলের দেখাদেখি বাবা-মা ও ছোট বোনটাও হলেন মুসলিম

মোহাম্মদ ইমাম হোসাইন, BD NEWS23 বিডি নিউজ২৩ঃ কদিন আগেও তার নাম ছিল কৃষ্ণ চন্দ্র দাস। তবে বর্তমানে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার পর তার নাম হয়েছে মোঃ আব্দুল্লাহ। নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে বিশ্নন্দি বাজারের পাশেই কৃষ্ণ চন্দ্র দাসের পরিবারের বসবাস।

ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার পর মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ সব সময় সুন্দর করে অজু করে মসজিদে গিয়ে নামাজ। এই দৃশ্যটা বাসার আরো দুজন সদস্য মা ও বাবা তারা ও ছোট বোন ফলো করতেন।

ছেলের ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করা নিয়ে প্রথমদিকে বাবা-মায়ের কিছুটা মাথাব্যথা থাকলেও পরের দিকে ছেলের পথে হেঁটেছেন মা, বাবা ছোট বোন। নিজের ছেলে মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ যখন ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন তারপর তার আচরণে অনেকটা পরিবর্তন দেখেন বাবা-মা এরপর ছেলেকে সাথে নিয়ে তারাও হিন্দু ধর্ম থেকে ইসলাম ধর্মে চলে আসেন।

সদ্য ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করা মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ তিনি তার ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করা বা তাকে কেন ইসলাম ধর্ম ভালো লাগে সেই সম্পর্কে তিনি একটি বক্তব্য দিয়েছেন।

সেই বক্তব্যে আবদুল্লাহ বলেন, আমাকে একদিন আমার এক মুসলিম বন্ধু একটা মেমোরি কার্ড দিয়েছিলেন। এই মেমোরি কার্ডের মধ্যে অনেকগুলো গজল, ওয়াজ এবং কোরআন তেলাওয়াত ছিল। আমি মেমোরি কার্ডটি থেকে প্রথমে গজল শুনি তখন আমাকে একটু ভালো লাগে। এরপর ওয়াজ সুনি সেটাও আমার কাছে ভালো লাগতে শুরু করে। তারপর যখন মনের ভিতর একটু ভয় নিয়ে কোরআন তেলাওয়াত শুনি তখন সেটা আরো বেশি ভাল লেগে যায়।

এরপর যত বেশি কোরআন তেলাওয়াত শুনি তত বেশি আমাকে ইসলাম ধর্মের প্রতি ব্যাপকভাবে আকৃষ্ট করে যার ফলাফল আমি হিন্দু থেকে ইসলাম ধর্মে চলে এসেছি।

আমার কাছে অজু করলে নিজেকে একজন গর্বিত মুসলিম বলে ভাবতে ভালো লাগে। মসজিদে যখন আযান দেয় মনটা আমার মসজিদে ছুটে যায় আর ভাবতে থাকি কখন জামাতের সাথে নামাজ টা আদায় করতে পারব।

জামাতের সাথে নামাজ আদায় করতে পারলে খুবই ভালো লাগে আর কোনদিন যদি জামাত মিস করি তখন বাসায় সেই রক্তের নামাজটা পড়ে নেই।

আব্দুল্লাহ জানান আমি যখন আমার বন্ধুর দেয়া মেমোরি কার্ডের বিভিন্ন ধরনের ভিডিও অডিও শুনতে থাকি তখন আমি খুব বেশি আকৃষ্ট হয়ে পরে এবং ছুটে যায় আমার পাশের এক মুরুব্বী দাদু যার নাম খোকন হাজী। আমার মনের ভিতরে যা হচ্ছিল সবগুলো খোকন হাজীকে খুলে বলেছিলাম। খোকন হাজীকে বলেছিলাম দাদু আমি ইসলাম গ্রহণ করতে চাই মানে হিন্দু ধর্ম ছেড়ে আপনাদের ধর্মে আসতে চাই এর জন্য যা যা করা দরকার আপনারা তাই তাই করুন।

এদিকে খোকন হাজী, কৃষ্ণ চন্দ্র দাস বর্তমানে আব্দুল্লাহ তাকে কিছুদিন ভাবার জন্য উপদেশ দেন বলেন কয়েকদিন চিন্তা করে দেখো একটা ধর্ম পরিবর্তনের বিষয়ে। তখন কৃষ্ণ চন্দ্র দাস বর্তমানে মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ তিনি বলেন ভাবাভাবির কোন দরকার নাই আমি সবকিছু ভেবে নিয়েছি আমি আজই আপনাদের ধর্মে প্রবেশ করতে চাই।

এদিকে কৃষ্ণ চন্দ্র দাস বর্তমানে মোহাম্মদ আবদুল্লাহ বাবার নাম ছিল স্বপন চন্দ্র দাস বর্তমানে তার নাম হয়েছে, ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার পর তার নাম হয়েছে সালমান হোসেন।

এদিকে পূর্বের কৃষ্ণ চন্দ্র দাস বর্তমান মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ বাবা, পূর্বের নাম স্বপন চন্দ্র দাস বর্তমান নাম হয়েছে সালমান হোসেন তিনি ও তার মা তারা বলেন, আমার ছেলে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছে একথা শুনে প্রথমে আমাদের খারাপ লেগেছিল পরবর্তীতে যখন আমার ছেলের মধ্যে ভাল কিছু দেখতে পাই এবং ভালো কার্যকলাপের সাথে সম্পৃক্ত হয় চলাচলে ভালো রকম পরিবর্তন হয় তারপর আমার বাসার আমার ছোট মেয়ে আমরা স্বামী-স্ত্রী সবাই মিলে স্থানীয় একটি মসজিদের ইমামের মাধ্যমে খোকন হাজির সহায়তা পুরো পরিবার ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেনি এবং সেই সাথে সৃষ্টিকর্তা এক ও অদ্বিতীয় বলে কালেমা পাঠ করে নেই।

স্বপন চন্দ্র দাস বর্তমান নাম সালমান হোসেন আব্দুল্লাহ বাবা তিনি বলেন, আলহামদুলিল্লাহ বর্তমানে খুবই ভালো আছি আল্লাহর রহমতে সবাই আমাদেরকে খুব ভালোবাসে আর আমরা যেন পরিবারের সবাই পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়তে পারি ইসলাম ধর্মের সকল কাজ পুঙ্খানুপুঙ্খরূপে পালন করে যেতে পারি সেজন্য আপনারা সবাই আমাদের পরিবারকে দোয়া করবেন।

সত্যের সন্ধান পেয়ে গেছি আল্লাহর কাছে এতটুকুই যাওয়া যে আমরা এই সত্যের উপরে থাকতে পারি শেষ জীবন পর্যন্ত।

তাদেরকে জিজ্ঞেস করা হলে তারা, আমরা কোন লোক বা কারো চাপে হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্মে প্রবেশ করেনি আমাদের সম্পূর্ণ সজ্ঞানে নিজ ইচ্ছায় আমরা ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছি।

এখন মসজিদে আজান হলে বাপ ছেলে একসাথে নামাজ পড়তে জান। পরিশেষে তারা দেশবাসী ও স্বপন মানুষের কাছে মন থেকে ভালোবাসা ও দোয়া চেয়েছেন যাতে তারা সারা জীবন সত্যের উপর থেকে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করতে পারেন। চাওয়া নারায়ণগঞ্জের সপরিবারে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করা ওই পরিবারের। BD NEWS23 বিডি নিউজ২৩ তথ্যসূত্র সংগ্রহ করা হয়েছে ইন্টারনেট থেকে। (দি ইয়াং ফেলো) ফেসবুক পেজের ভিডিও থেকে।

BD NEWS23 বিডি নিউজ২৩
ছেলের দেখাদেখি বাবা-মা ও ছোট বোনটাও হলেন মুসলিম
শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *