November 30, 2020

প্রিসিলার কুরআন ও আজান প্রতিযোগিতার আয়োজন

1 min read

 বাংলাদেশী মেয়ে আমেরিকার সিটিজেন। থাকেন আমেরিকার নিউইয়র্ক শহরে। আমেরিকাতে থাকলে কি হবে, প্রাণটা সবসময় কাঁদে বাংলাদেশের জন্য, কিছু একটা করার চেষ্টা থাকে বাংলাদেশী মানুষের জন্য। অল্প কয়েক মাস আগেই ফেইসবুক-ইউটিউব, ইন্সট্রাগ্রাম, টুইটার, সহ নানান সামাজিক মাধ্যমে, পুরো পৃথিবীর মানুষ জাতির জন্য সেবামূলক কাজ করে যাচ্ছেন প্রিসিলা ফাতেমা। তিনি এবার খুব সুন্দর মহৎ একটি উদ্যোগ হাতে নিয়েছেন। তিনি উদ্যোগ নিয়েছেন পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত ও আযান প্রতিযোগিতার।

এই প্রতিযোগিতার জন্য, পুরষ্কার নির্ধারণ করা হয়েছে দুইটি ক্যাটাগরিতে। প্রথম পুরস্কার নির্ধারণ করেছেন, ৫০,০০০ টাকা ও ক্রেস্ট। দ্বিতীয় পুরস্কার, ৩০ হাজার টাকা ও ক্রেস্ট। এবং তৃতীয় পুরস্কার, ২০ হাজার টাকা ও ক্রেস্ট। আপনার যদি সুমিষ্ট সুন্দর কন্ঠ থাকে তাহলে মোবাইলে বা ক্যামেরার মাধ্যমে, আপনার তেলাওয়াত ভিডিও আকারে ধারণ করে পাঠাতে পারেন। অথবা আপনি যদি খুব সুন্দর আজান দিতে পারেন তাহলে সেটাও মোবাইলে বা ক্যামেরার মাধ্যমে রেকর্ড করে ভিডিও আকারে পাঠাতে পারেন।

আপনি ইচ্ছে করলে কোরআন তেলাওয়াত ও আজান প্রতিযোগিতা, উভয় বিভাগেই প্রতিযোগিতা করতে পারবেন‌। আপনি যেকোন বয়সের হতে পারেন তাতে কোন সমস্যা নেই। উল্লেখ্য যে আজান প্রতিযোগিতায় প্রথম, দ্বিতীয়, ও তৃতীয় বাছাই করা। ঠিক একইভাবে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতেও প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয়, বাছাই করা হবে। এখানে আজান প্রতিযোগিতায় তিনজন পুরস্কৃত হবেন এবং কুরআন তেলাওয়াত প্রতিযোগিতায় আরো তিনজন পুরস্কৃত হবে সর্বমোট ২ ক্যাটাগরি মিলে ছয়জনকে পুরস্কার দেওয়া হবে।

কুরআন তিলাওয়াত প্রতিযোগিতার জন্য, কুরআনের যেকোনো অংশ থেকে পাঁচ মিনিট তেলাওয়াত ভিডিও রেকর্ড করে পাঠাতে হবে। এবং আযানের ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ আজান ভিডিও রেকর্ড করে পাঠাতে হবে। কোরআন তেলাওয়াত শুরুর পূর্বে এবং আযান ভিডিও রেকর্ড করার পূর্বে আপনার নাম এবং জেলা নাম উল্লেখ করতে হবে। এবং ভিডিও পাঠানোর সময় আপনার ফোন নাম্বার অবশ্যই পাঠাতে হবে। আপনার পাঠানো ভিডিওটি যদি প্রচার যোগ্য হয় তাহলে প্রিসিলা নিউইয়র্ক নামের ফেসবুক পেজ এবং ইউটিউব চ্যানেলে প্রচার করা হবে।

এবং আপনার ভিডিওর বিচার করবেন দর্শকরা। আপনার ভিডিওটি প্রিসিলার ইউটিউব চ্যানেল এবং ফেসবুক পেইজে প্রচার করার পর, আপনার ভিডিওর ভিউজ, লাইক, কমেন্ট এবং শেয়ারের উপর বিচার করে, প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় নির্ধারণ করা হবে। আপনাদের পাঠানো ভিডিওটি গ্রহণ করা হবে আগস্ট মাসের ২০ তারিখ থেকে, নভেম্বর মাসের ৩০ তারিখ পর্যন্ত। এবং নভেম্বরে ৩০ তারিখের পর কোন ভিডিও আর গ্রহণ করা হবে না। এবং ডিসেম্বর মাসের ৩০ তারিখে প্রথম স্থান, দ্বিতীয় স্থান, তৃতীয় স্থান, নির্বাচন করা হবে। এবং একই মাস ডিসেম্বরের ৬ তারিখে বাংলাদেশ সময় রাত ৯ টা ৩০ মিনিটে প্রিসিলার ফেইসবুক পেইজ থেকে লাইভ এর মাধ্যমে দেখানো হবে। পাশাপাশি জানিয়ে দেওয়া হবে, কে কে বিজয়ী হয়েছেন।

তাই যারা আগে ভিডিও পাঠাবেন তাদের ভিডিওতে স্বাভাবিকভাবেই বেশি ভিউ হবে লাইক, কমেন্টস, শেয়ার হবে। সেজন্য যারা প্রতিযোগিতা করতে চান তারা তাড়াতাড়ি প্র্যাকটিস করে প্রিসিলা ফাতেমার দেওয়া ইমেইল নাম্বার এ আপনার ভিডিওটি পাঠিয়ে দিন। প্রিসিলার ইমেইল নাম্বার হচ্ছে, [email protected] এই ইমেইল নাম্বারে আপনাদের ধারণ করা ভিডিওটি পাঠাতে পারেন। এছাড়াও কোনো ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠান যদি চান প্রিসিলা ফাতেমার এই অনুষ্ঠানটির স্পন্সর হতে পারেন। আপনি যদি স্পন্সর হতে চান তাহলে উপরে দেওয়া ওই একই ইমেইল নাম্বারে যোগাযোগ করতে পারেন।

উল্লেখ্য যে, আপনার প্রতিযোগিতার ভিডিওটি কোন ব্যক্তি বা মিডিয়ার ভালো লেগে গেলে সেখান, থেকেও আপনার কাছে পুরস্কার আসতে পারে। অথবা কোন মিডিয়া পছন্দ করে ফেললে আপনি সেখানেও কাজ করতে পারবেন। তাই আর দেরি না করে প্রিসিলা ফাতেমার সমাজ উন্নয়নমূলক প্রতিযোগিতার কাজে অংশগ্রহণ করে নিজেকে একজন গর্বিত প্রতিযোগী হিসেবে গড়ে তুলুন।

12 thoughts on “প্রিসিলার কুরআন ও আজান প্রতিযোগিতার আয়োজন

  1. মালয়েশিয়া আছি আমি এখান থেকে করা যাবে? নাকি শুধু বাংলাদেশে যারা আাছে তারা অংশ গ্রহণ করবে এই প্রতিযোগিতায়।

  2. লেখাটি ভালভাবে পড়ুন আপনার সকল প্রশ্নের উত্তর এখানে আছে। জিহা পৃথিবীর যেকোন জায়গা থেকে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

  3. আচ্ছা এগুলো কি খালি মুখে করতে হবে.???নাকি মাইক্রোফোন ব্যবহার করা যাবে কি??

  4. আচ্ছা এগুলো কি খালি মুখে করতে হবে.???নাকি মাইক্রোফোন ব্যবহার করা যাবে কি??

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *